Home / ভ্রমন / সহজেই করতে পারেন স্মার্ট প্যাকিং!

সহজেই করতে পারেন স্মার্ট প্যাকিং!

বেড়াতে যাওয়ার সময় আমরা অনেক কিছুই করতে ভুলে যাই। যার ফলে নানান বিপত্তির সম্মুখীন হতে হয়। তাই বিশ্বব্যাপী নানান দেশের পর্যটকদের সাথে সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে করা হয়েছে একটি জরিপ।

এই জরিপে তাদেরকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল – তাদের মতে ভ্রমণের জন্য ব্যাগ গোছানোর সবচাইতে ভালো উপায় কোনগুলো? পাশাপাশি বেড়াতে যাওয়ার আগে অবশ্য করনিয় কাজগুলো কী কী? তাদের উত্তর আর মতামতের ভিত্তিতেই আপনাদের জন্য কিছু ভ্রমণের টিপস:

স্বাচ্ছন্দ্যে ভ্রমণে কম জিনিসপত্র বহন করুন:

যদি আপনি কম জিনিসপত্র নিয়ে ভ্রমণ করে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন, তাহলে এই কাজটি করতে পারেন। যা যা দরকার তার অর্ধেক পরিমাণ জিনিস সাথে নিন, আর যত টাকা দরকার তার দ্বিগুণ টাকা নিন। তাতে করে আপনি প্রয়োজনীয় কিছু জিনিস নতুন করে কিনে নিতে পারবেন। আপনার ভ্রমণে এটি একটি আলাদা ও বাড়তি আনন্দ যোগ করবে।

ব্যাগের জায়গার সর্বোচ্চ ব্যাবহার নিশ্চিত করুন:

আপনার কাপড়গুলো ভাঁজ না করে গোল করে পেঁচিয়ে নিন। মোজা, রুমাল এসব জিনিস জুতার ভেতরে ঢুকিয়ে নিন। ব্যাগে এমনভাবে সবকিছু ঢোকাবেন যেন কোনো জায়গা ফাঁকা না থাকে। এতে আপনার ব্যাগের সংখ্যা কমে যাবে।

সন্নিবেশিত করুন:

ছোট ছোট জিনিসগুলো এলোমেলো করে ব্যাগে ঢোকালে তা প্রয়োজনের সময় খুঁজে পাবেন না। পাশাপাশি এগুলো নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনাও থাকবে। তাই এই জিনিসগুলোকে হাতের কাছে থাকা ছোট ছোট ব্যাগে সন্নিবেশ করুন। এক্ষেত্রে রান্নাঘরে ব্যবহৃত স্যান্ডুইচ ব্যাগ কাজে আসতে পারে। বায়ু নিরোধক ব্যাগগুলোও এই ক্ষেত্রে কাজে আসতে পারে। কাজে আসতে পারে ময়লা ফেলার ব্যাগগুলোও। বিশেষ করে ভ্রমণে ময়লা হওয়া কাপড়গুলো আনার জন্য, আর জুতা বহনের জন্য। 

ভাগে ভাগে জিনিস রাখুন:

যদি আপনি একই সফরে কয়েকটা জায়গা ভ্রমণের জন্য বের হন, তাহলে দিন ও জায়গা অনুসারে প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো আলাদা আলাদা ভাগে রাখুন। এতে আপনাকে বার বার সবগুলো জিনিস খুলে বের করতে হবে না। পাশাপাশি আপনি বার বার গোছানোর ঝামেলা থেকে বেঁচে যাবেন।

একসাথে কয়েকটি জিনিস চার্জ করার মতো ব্যবস্থা রাখুন:

আজকাল প্রায় প্রত্যেকেরই বেশ কিছু জিনিস চার্জ করার দরকার হয়। যেমন- মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ, ক্যামেরা ইত্যাদি। আর চার্জ ফুরিয়ে গেলে এগুলো বন্ধ হয়ে থাকে। তাই যতটুকু সময় আপনি হোটেলে থাকছেন বা চার্জ করার মতো সুযোগ পাচ্ছেন তার মধ্যেই আপনাকে সবকিছু চার্জ করে নিতে হবে। এখন বেশিরভাগ হোটেলেই কয়েকটি করে চার্জিং পয়েন্ট দেওয়া থাকে। কিন্তু ঝুঁকি না নিয়ে একসাথে কয়েকটি জিনিস চার্জ করার মতো ব্যবস্থা নিজের সাথেই রাখুন।

একটি স্লিপ-মাস্ক আর একজোড়া ইয়ার-প্লাগ সাথে রাখুন: 

এগুলো আপনার ভ্রমণের সময় প্লেনে, বাসে, ট্রেনে এমনকি হোটেলের রুমেও কাজে আসতে পারে।

সাথে একটি ভালো শাল বা চাদর রাখুন:

এটাকে আপনি কম্বলের মতো ব্যবহার করতে পারবেন বা একটি হিমশীতল সন্ধ্যায় এটি আপনাকে উষ্ণ রাখতে পারবে। প্রয়োজনে যেকোনো জায়গায় বিছিয়ে শুতেও পারবেন।

যতটা সম্ভব খাবার সাথে নিয়ে যান: 

এয়ারপোর্টে বসে বসেই দেখা যায় বেশ বড় অংকের একটা টাকা খরচ হয়ে গেছে। কিন্তু একটু কষ্ট করলে বাড়ি থেকে কিছু নিয়ে গেলেই এই খরচটা হতো না। তাই যতটা সম্ভব রেস্টুরেন্ট এড়িয়ে চলুন। নিজের খাবার সাথে রাখুন। আপনার ভ্রমণের খরচ অনেকাংশেই কমে যাবে।

নিজেদের ব্যাগ অন্যের সাথে ভাগাভাগি করুন:

একসাথে ভ্রমণ করছেন? তাহলে নিজের কিছু জিনিস অন্যের ব্যাগে, আর অন্যের কিছু জিনিস নিজের ব্যাগে রাখুন। এতে করে একটি ব্যাগ হারিয়ে গেলেও আপনারা খুব বেশি বিপদে পড়বেন না।

নিজের গুরুত্বপূর্ণ জিনিসের ফটোকপি রাখুন:

যদি অন্য দেশে ভ্রমণে যান, তাহলে অবশ্যই আপনার পাসপোর্ট আর আইডি কার্ডের অন্তত ২ কপি ফটোকপি রাখুন। নিজের মোবাইলেও ছবি রাখুন। এয়ারপোর্টে গাড়ি রেখে দেশের বাইরে গেলে সেটার ছবি রাখুন। নিজের লাগেজের ছবি নিতে ভুলবেন না। এই সব ছবি রাখার কারণ হলো, এর মধ্য থেকে যে কোনোটি হারিয়ে গেলে খুঁজে পেতে আপনাকে এই ছবিগুলো সহযোগিতা করবে। 

স্মার্ট হয়ে উঠুন, ঝামেলা এড়ান। এই কৌশলগুলো মেনে চললে শখের জিনিস, দরকারি জিনিস সবই নিয়ে যেতে পারবেন। পাশাপাশি থাকবেন নিরাপদ। আনন্দময় হোক আপনার ভ্রমণ।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *